হোয়াইটওয়াশ এড়াতে চায় বাংলাদেশ

2 months ago 49

নিউজিল্যান্ডের কাছে প্রথম দুই ম্যাচ হেরে এরই মধ্যে ওয়ানডে সিরিজ হাতছাড়া করেছে বাংলাদেশ। তাই সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডে জিতে হোয়াইটওয়াশ এড়াতে চায় টাইগাররা। একই সঙ্গে জয় দিয়ে সিরিজ শেষ করার লক্ষ্য টাইগারদের।

আগামীকাল (শুক্রবার) ওয়েলিংটনে সিরিজের শেষ ম্যাচে নিউজিল্যান্ডের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় ভোর ৪টায়। খেলা সরাসরি দেখা যাবে বাংলাদেশ টেলিভিশন, গাজী টিভি ও টি-স্পোটর্স চ্যানেলে।

প্রথম ওয়ানডে ৮ উইকেটে ও দ্বিতীয়টি ৫ উইকেটে জিতে সিরিজ নিজেদের করে নিয়েছে নিউজিল্যান্ড। কিউইদের মাটিতে এখনো জয়ের দেখা পায়নি বাংলাদেশ। দুই ওয়ানডে হেরে যাওয়ায় নিউজিল্যান্ডের মাটিতে বাংলাদেশের হারের সংখ্যা গিয়ে দাঁড়িয়েছে ২৮-এ (১৫টি ওয়ানডে, ৯টি টেস্ট ও ৪টি টি-২০)।

অতীতের রেকর্ড হতাশাজনক হলেও ওয়ানডে ক্রিকেটে দারুণ পারফরম্যান্সের কারণেই আত্মবিশ্বাস নিয়ে নিউজিল্যান্ডের মাটিতে পা রাখে বাংলাদেশ। কিন্তু সেখানে এখনো ম্যাচ জিততে পারেনি টাইগাররা।

প্রথম ম্যাচে ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় মাত্র ১৩১ রানে অলআউট হয়ে ৮ উইকেটে ম্যাচ হারে বাংলাদেশ। দ্বিতীয় ম্যাচে খোলস থেকে বের হয়ে দলকে ৬ উইকেটে ২৭১ রানের বড় স্কোর এনে দেন টাইগার ব্যাটসম্যানরা।

বড় পুঁজি পেয়ে জ্বলে উঠেছিলো বোলাররাও। ম্যাচের এক পর্যায়ে ১১ ওভারে ৫৩ রানের মধ্যে নিউজিল্যান্ডের ৩ উইকেট তুলে নেন বোলাররা। কিন্তু বাজে ফিল্ডিং ও ক্যাচ মিসের কারণে হাত থেকে ম্যাচটি ফসকে যায় বাংলাদেশের। তবে দ্বিতীয় ওয়ানডে হারলেও প্রথমবারের মত নিউজিল্যান্ডের মাটিতে তাদেরকে হারানোর জন্য আত্মবিশ্বাস ঠিকই পেয়েছে বাংলাদেশ।

সিরিজ নির্ধারণ হয়ে যাওয়ায় তৃতীয় ম্যাচটি গুরুত্বহীন হয়ে পড়েছে। কিন্তু সিরিজটি আইসিসি সুপার লিগের অংশ হওয়ায় ম্যাচটি বিশেষ গুরুত্ব বহন করছে। ভারতে অনুষ্ঠেয় ২০২৩ ওয়ানডে বিশ্বকাপে সরাসরি খেলতে হলে দলগুলোকে আইসিসি সুপার লিগের পয়েন্ট টেবিলে ভালো অবস্থায় থাকতে হবে। তাই পয়েন্টের হিসেবে তৃতীয় ওয়ানডের গুরুত্ব অনেক বেশি।

জয় দিয়ে শুধুমাত্র হোয়াইটওয়াশ এড়িয়ে যাওয়াই নয়, একই সঙ্গে ১০ পয়েন্টও সংগ্রহ করতে পারবে বাংলাদেশ। বিদেশের মাটিতে পাওয়া ১০ পয়েন্ট, ২০২৩ বিশ্বকাপে সরাসরি খেলার পথে টাইগারদের অনেক সহায়তা করবে।

তবে ১০ পয়েন্ট বা হোয়াইটওয়াশ নিয়ে ভাবছে না বাংলাদেশ। তাদের লক্ষ্য, নিউজিল্যান্ডের মাটিতে প্রথম জয় তুলে নেয়া। টাইগার অধিনায়ক তামিম ইকবাল জানিয়েছেন, উন্নতি নিয়ে কথা না বলে শুধুমাত্র জয়ের দিকেই মনোযোগী হতে চান তারা। এ ব্যাপারে তিনি বলেন, আমরা এখানে উন্নতি করতে আসিনি, জিততে এসেছি।

দ্বিতীয় ম্যাচে বাংলাদেশের পক্ষে সর্বোচ্চ ৭৮ রান করেন তামিম ইকবাল। তার সঙ্গে ব্যাট হাতে উজ্জ্বল ছিলেন মোহাম্মদ মিঠুনও। ৫৭ বলে অপরাজিত ৭৩ রান করেন তিনি।

তামিমের সঙ্গে সুর মিলিয়ে মিঠুন বলেন, আমরা অবশ্যই এখানে একটি ম্যাচ জিততে চাই। আমরা যদি একটি ম্যাচ জিততে পারি, তবে সেটিই আমাদের জন্য বড় সাফল্য হবে। এখনো একটি ওয়ানডে আছে এবং আমরা আমাদের সেরাটাই দিব। আমি মনে করি, আমরা এখনো একটি খেলা জিততে পারি।

যদিও নিউজিল্যান্ডের মাটিতে কখনোই জয় পায়নি বাংলাদেশ, তবে পরিসংখ্যান বলছে ওয়ানডে ক্রিকেটে কিউইদের বিপক্ষে বলার মত সাফল্য রয়েছে টাইগারদের। ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও জিম্বাবুয়ের পাশাপাশি নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ডাবল ফিগারের জয় রয়েছে বাংলাদেশের। দেশটির বিপক্ষে ৩৭ ম্যাচে ১০টি জয় পেয়েছে লাল সবুজের প্রতিনিধিরা।

১০টি জয়ের সবক’টি দেশের মাটিতে বা নিরপেক্ষ ভেন্যুতে। লড়াই হয়েছে ২২ বার। এর অর্থ, নিউজিল্যান্ডের বাইরে কিউইদের জন্য কঠিন প্রতিপক্ষ বাংলাদেশ।

Read Entire Article