স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে মার্কিন জনপ্রতিনিধিদের অভিনন্দন

3 months ago 62

বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে দেশের অভাবনীয় উন্নয়নের ভূয়সী প্রশংসা করে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন বেশ কয়েকজন মার্কিন জনপ্রতিনিধি। 

মার্কিন কংগ্রেসওম্যান গ্রেস মেং, নিউইয়র্ক স্টেট সিনেটর জন ল্যু এবং কুইন্স বোরো প্রেসিডেন্ট ডনাভান রিচার্ডস ভিডিও বার্তার মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের অভাবনীয় উন্নয়নের ভূয়সী প্রশংসা করে নিউ ইয়র্কে বসবাসরত বাংলাদেশি-আমেরিকানসহ সকল বাংলাদেশিদেরকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন। 

একই সঙ্গে মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে তারা সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিও শ্রদ্ধা জানান। 

নিউ ইয়র্কের কুইন্স থেকে নির্বাচিত মার্কিন কংগ্রেসওম্যান গ্রেস মেং তার বক্তব্যে বাংলাদেশ যুক্তরাষ্ট্রের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ককে আরো সুদৃঢ় করার লক্ষ্যে কাজ করে যাবেন বলে উল্লেখ করেন। 

নিউ ইয়র্ক রাজ্যের রাজধানী আলবেনি থেকে পাঠানো ভিডিও বার্তায় স্টেট সিনেটর জন ল্যু জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে গভীর শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করেন। দু’বছর আগে জাতির পিতার বাসভবন সফরের স্মৃতিচারণ করে সিনেটর জন ল্যু ১৯৭৫ এর ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুসহ সকল শহীদদের নৃশংস হত্যাকান্ডকে তিনি ইতিহাসের একটি বর্বর অধ্যায় হিসেবে উল্লেখ করেন। 

বাংলাদেশি-আমেরিকান অধ্যুষিত কুইন্স বোরো প্রেসিডেন্ট ডনাভান রিচার্ডস বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করেন। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর সুদৃঢ় রাজনৈতিক প্রজ্ঞা ও বিচক্ষণ নেতৃত্বের কারণেই নয় মাস রক্তক্ষয়ী মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে বাংলাদেশ একটি স্বাধীন সার্বভৌম দেশ হিসেবে পৃথিবীর মানচিত্রে স্থান করে নিয়েছে। 

তিনি মহান স্বাধীনতার বীর মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি সম্মান জানান। কুইন্সে বসবাসরত বাংলাদেশি-আমেরিকান কমিউনিটির সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও অর্থনৈতিক অবদানকে তিনি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বলে অভিহিত করেন। 

নিউ ইয়র্কে করোনা ভাইরাসজনিত বৈশ্বিক মহামারির পরিপ্রেক্ষিতে স্বাগতিক দেশের বিধি-বিধান প্রতিপালন সাপেক্ষে বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেল, নিউ ইয়র্ক আগামী ২৬ মার্চ ২০২১ দুপুর ১২ টায় (নিউইয়র্ক সময়) ভার্চুয়ালী বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস-২০২১ উদযাপন করবে। এই অনুষ্ঠানে যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসওমেন গ্রেস মেং, নিউ ইয়র্ক স্টেট সিনেটর জন সি. ল্যু এবং কুইন্স বোরো প্রেসিডেন্ট ডনাভান রিচার্ডসসহ বীর মুক্তিযোদ্ধাবৃন্দ, বাংলাদেশি-আমেরিকান কমিউনিটি ও বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূত/কনসাল জেনারেলবৃন্দের বক্তব্য প্রচারিত হবে। 

মুক্তিযুদ্ধে অসাধারণ অবদানের জন্য বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক Friends of Liberation War Honor প্রাপ্ত প্রখ্যাত মার্কিন চলচ্চিত্র নির্মাতা লেয়ার লেভিনও ভার্চুয়াল এ অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখবেন।

এছাড়াও, এ অনুষ্ঠানে বাংলাদেশি-আমেরিকান কমিউনিটির অংশগ্রহণে সাংস্কৃতিক পরিবেশনা থাকবে।

Read Entire Article