সেঞ্চুরির পর বল হাতেও দুর্দান্ত শহিদুল

2 weeks ago 11

আগের দিন অধিনায়ক মার্শাল আইয়ুবের সেঞ্চুরি, এরপর প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে শহিদুল ইসলামের শতক উদযাপন। ‘বঙ্গবন্ধু জাতীয় ক্রিকেট লিগ স্পন্সরড বাই ওয়ালটন’- এ দ্বিতীয় স্তরের আরেক ম্যাচে বরিশাল বিভাগকে প্রথম ইনিংসে ২৪১ রানে গুটিয়ে দেওয়ার পর দুই সেঞ্চুরিতে ৪১৩ রানের পাহাড় গড়েছে ঢাকা মেট্রোপলিটন।

১৭২ রানের লিড নেওয়ার পর দ্বিতীয় ইনিংসেও বরিশালকে কাঁপিয়ে দিয়েছে ঢাকা মেট্রো। তবে ইনিংস ব্যবধানে হারের শঙ্কাকে ঠেলে ৩ উইকেট হাতে রেখে ৫ রানের লিড নিয়েছে বরিশাল। ৭ উইকেটে ১৭৭ রান করেছে তারা নিজেদের বিভাগীয় স্টেডিয়ামে।

৪২ রানে অপরাজিত থেকে বুধবার (২৪ মার্চ) মাঠে নামেন শহিদুল। সঙ্গে ২১ রানে অপরাজিত ছিলেন আবু হায়দার। দলের রান তখন ৭ উইকেটে ৩২৪। শহিদুলের ১৫০ বলে ১০৬ রানের সুবাদে চারশ ছাড়ায় ঢাকা মেট্রো। দলীয় ৪০৪ রানে তিনি আউট হন সৈকত আলীর বলে। আবু হায়দার ৩৯ রানে আউট হলে শেষ হয় তাদের ইনিংস।

ঢাকা মেট্রোর প্রথম ইনিংসে দুটি করে উইকেট নেন বরিশালের কামরুল ইসলাম, সোহাগ গাজী, মনির হোসেন ও তানভির ইসলাম।

সেঞ্চুরির পর শহিদুল বল হাতেও বাজিমাত করেন। মোহাম্মদ আশরাফুলকে (১) বোল্ড করে উদ্বোধনী ‍জুটি ভাঙেন তিনি। পরে উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান আবু সায়েমকেও (৫) নিজের শিকার বানান শহিদুল। মাঝে ৫০ রানে ২ উইকেট হারানোর পর ওপেনার মইনুল ইসলামের সঙ্গে তৃতীয় উইকেটে ৭৯ রানের জুটি গড়েছিলেন সামলান হোসেন (৪৪)।

হাফ সেঞ্চুরিতে প্রতিরোধ গড়ার পর মইনুলকে ৬৩ রানে ফিরিয়ে দেন শামসুর রহমান। তাতে আরও চাপে পড়ে বরিশাল। নুরুজ্জামান (১৩) দলকে পাঁচ রানের লিড এনে দিয়ে বিদায় নিলে শেষ হয় দিনের খেলা।

শহিদুলের সমান দুটি করে উইকেট নেন ঢাকা মেট্রোর আবু হায়দার। এছাড়া আরাফাত সানি ও শামসুর নেন একটি করে উইকেট।

View Source