সিঙ্গাপুরের প্রধানমন্ত্রীর মানহানি, ব্লগারের ৮৪ লাখ টাকা জরিমানা

4 months ago 54

 ব্লগার লিওং জি হিয়ান ও প্রধানমন্ত্রী লি সিয়েন লুং

ছবি: ব্লগার লিওং জি হিয়ান ও প্রধানমন্ত্রী লি সিয়েন লুং

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে সিঙ্গাপুরের প্রধানমন্ত্রী লি সিয়েন লুংয়ের বিরুদ্ধে দুর্নীতির কেলেঙ্কারিতে জড়িত থাকার একটি সংবাদ শেয়ার করায় দেশটির এক ব্লগারকে এক লাখ ডলার (বাংলাদেশি প্রায় ৮৪ লাখ ৩ হাজার ৮৯৯ টাকা) জরিমানা করা হয়েছে।

আদালতের রায়ে বলা হয়, ওই ব্লগার ভিত্তিহীন সংবাদ শেয়ারের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর মানহানি করেছেন।

মালয়েশিয়ার বহুল আলোচিত ওয়ানএমডিবি অর্থ-পাচার কেলেঙ্কারির সঙ্গে সিঙ্গাপুরের প্রধানমন্ত্রী লি সিয়েন লুংয়ের সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ সংক্রান্ত একটি সংবাদ ফেসবুকে শেয়ার করেছিলেন ব্লগার লিওং জি হিয়ান। তিনি এই সংবাদ শেয়ারের মাধ্যমে মিথ্যা তথ্য ছড়িয়েছেন বলে অভিযোগ করেন সিঙ্গাপুরের প্রধানমন্ত্রী লি।

সমালোচনা করায় সিঙ্গাপুরের নেতারা রাজনৈতিক সমালোচক থেকে শুরু করে বিদেশি গণমাধ্যমকে প্রায়ই আদালতে তোলেন। সরকারের সুনাম রক্ষার জন্য এ ধরনের পদক্ষেপে দেশটির সরকার জোর দিচ্ছে বলে অনেকে ধারণা করছেন।

সমালোচকরা বলছেন, ব্লগার লিওং জি হিয়ানকে জরিমানার এই ঘটনা নগর রাষ্ট্র সিঙ্গাপুরের সরকার যে অনলাইনে ভিন্নমত দমনের চেষ্টা করছে; তার সর্বশেষ উদাহরণ।

দেশটির হাই কোর্টের বিচারপতি আদিত আব্দুল্লাহ প্রধানমন্ত্রী লির পক্ষে আদালতে মামলার শুনানিতে অংশ নেন। দীর্ঘ শুনানি শেষে তিনি ব্লগার লিওংকে এক লাখ ৩৩ হাজার সিঙ্গাপুরি ডলার জরিমানা করেন। যদিও সিঙ্গাপুরের প্রধানমন্ত্রী দেড় লাখ সিঙ্গাপুরি ডলার ক্ষতিপূরণ চেয়ে মানহানির এই মামলা করেছিলেন।

লিওংয়ের আইনজীবী লিম টিন আদালতের এই রায়কে ‌‘ভুল এবং অত্যন্ত ত্রুটিপূর্ণ সিদ্ধান্ত’ বলে মন্তব্য করেছেন। গত বছরের অক্টোবরে সিঙ্গাপুরের আদালতে মানহানির মামলা করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী লি। সেই সময় ব্লগার লিওং ভিত্তিহীন ও ক্ষতিকর তথ্য ছড়িয়ে সরকারের সততা এবং ঐক্য বিনষ্ট করছেন বলে অভিযোগ আনা হয়।

লিওং ফেসবুকে যে সংবাদটি শেয়ার করেছিলেন সেটি মূলত মালয়েশিয়ার একটি সংবাদমাধ্যমের। ওই সংবাদে বলা হয়েছিল, প্রতিবেশী মালয়েশিয়ার ওয়ানএমডিবি অর্থ কেলেঙ্কারির ঘটনার তদন্তের লক্ষ্য ছিলেন সিঙ্গাপুরের প্রধানমন্ত্রী লি।

মালয়েশিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাক ও তার ঘনিষ্ঠজনরা সরকারি একটি প্রকল্প থেকে লাখ লাখ ডলার হাতিয়ে নিয়েছিলেন। এ ঘটনায় সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে মামলা চলমান রয়েছে। মালয়েশিয়ার বহুল আলোচিত অর্থ কেলেঙ্কারির এই ঘটনা বিশ্বজুড়ে ওয়ানএমডিবি নামে পরিচিত।

সূত্র: এএফপি

Read Entire Article