শাল্লায় হামলা: আরও ২ জন গ্রেপ্তার

4 months ago 56

সুনামগঞ্জের শাল্লা উপজেলায় হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের বাড়িঘরে হামলা, ভাংচুরের ঘটনায় আরও দুইজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (২৩ মার্চ) ভোরে শাল্লা উপজেলার আটগাঁও গ্রামে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন শাল্লা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাজমুল হক। এ নিয়ে মামলার প্রধান আসামি শহিদুল ইসলাম ওরফে স্বাধীন মেম্বারসহ ৩৫ জন গ্রেপ্তার হলেন। তবে পুলিশ অন্য কোনো আসামির নাম-পরিচয় প্রকাশ করেনি।  

এদিকে, আজ মঙ্গলবার (২৩ মার্চ) সুনামগঞ্জের সিনিয়র চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে প্রধান আসামিসহ ৩০ জনের রিমান্ড আবেদনের ওপর  শুনানির দিন ধার্য রয়েছে।

গত ১৬ মার্চ রাতে ফেবুকে হেফাজত ইসলামের কেন্দ্রীয় নেতা মামুনুল হককে নিয়ে কটূক্তি করার অভিযোগ ওঠে হবিবপুর ইউনিয়নের নোয়াগাঁও গ্রামের হিন্দু সম্প্রদায়ের যুবকের বিরুদ্ধে। বিষয়টি ভাইরাল হলে পুলিশ স্থানীয়দের সহযোগিতায় ওই দিন রাতে তাকে আটক করে। এ ঘটনার জের ধরে ১৭ মার্চ সকালে নোয়াগাঁও গ্রামের হিন্দু সম্প্রদায়ের বাড়িঘর ভাঙচুর করা হয়।

ওই দিন বিকেলে হামলা, ভাঙচুরের অভিযোগে শাল্লা থানায় দুটি মামলা হয়। একটি মামলার বাদী শাল্লা থানার এসআই আব্দুল করিম। এ মামলায় অজ্ঞাতনামা দেড় সহস্রাধিক মানুষকে আসামি করা হয়।

অন্য মামলার বাদী স্থানীয় হবিবপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বিবেকানন্দ মজুমদার বকুল। এই মামলায় ৮০ জনের নাম উল্লেখ এবং অজ্ঞাতনামা ৭০০ জনকে আসামি করা হয়।

১৮ মার্চ রাতে অভিযান চালিয়ে ২২ জনকে গ্রেপ্তার করে শাল্লা থানা পুলিশ। ১৯ মার্চ রাতে মৌলভীবাজারের কুলাউড়া থানা এলাকা থেকে আত্মগোপনে থাকা শহিদুল ইসলাম ওরফে স্বাধীন মেম্বারকে গ্রেপ্তার করে পিবিআই।  

রোববার (২১ মার্চ) বিকেলে সিনিয়র চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শ্যাম কান্ত সিনহার আদালতে ৩৩ জনকে হাজির করেন শাল্লা থানার এসআই আবুল বাশার। পরে প্রধান আসামি স্বাধীন মেম্বারকে ১০ দিনের ও ২৯ জনকে ৫ দিন করে রিমান্ডের আবেদন করেন তিনি।  

*শাল্লায় বাড়িঘরে হামলা, ২ মামলায় আসামী ২ সহস্রাধিক

*হিন্দু সম্প্রদায়ের ঘরবাড়ি ভাঙচুর পরিদর্শনে র‌্যাব ডিজি

*‘হিন্দুদের বাড়িঘরে যারা হামলা চালিয়েছে তাদের রক্ষা নেই’

*শাল্লায় হামলা: আটক ২২

*শাল্লায় হামলা: গ্রেপ্তার আরও ৩ 

*মামুনুল হকের ওয়াজ মাহফিল বাতিল

Read Entire Article