লঞ্চের লস্কর হত্যায় একজনের যাবজ্জীবন

1 month ago 18

খুলনায় লঞ্চের লস্কর আইয়ুব আলী হত্যা মামলায় একজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে তাকে ২৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুরে জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. মশিউর রহমান চৌধুরী এ রায় ঘোষণা করেন। এ সময় আসামি উপস্থিত ছিলেন।

এ মামলার অপর আসামি অপ্রাপ্ত বয়স্ক হওয়ায় শিশু আদালতে তার বিচারকার্য চলছে। দণ্ডিত মো. রায়হান সরদার যশোরের চাঁচড়া এলাকার হাকিম সরদারের ছেলে।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, ২০১৯ সালের ৬ অক্টোবর সকাল পৌনে ৬টায় লঞ্চটি কয়রা উপজেলার ভান্ডার পোল এলাকায় পৌঁছায়। যাত্রীরা লঞ্চ থেকে নামতে শুরু করলে দুই যাত্রী নিজেদের টিকিট দেখাতে পারেননি। তাদের জিজ্ঞাসা করা হলে উত্তর দেন চালনা থেকে এসেছেন। তখন লঞ্চের লস্কর আইয়ুব আলী বলেন, তারা খুলনা থেকে উঠেছে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে পকেট থেকে ছুরি বের করে আইয়ুবের পেটে ঢুকিয়ে দেন রায়হান। পরে তিনি লঞ্চের ওপর লুটিয়ে পড়েন।

এ সময় এক কেরানি এগিয়ে গেলে তামিম হাসান আকাশ নিজের পকেট থেকে ছুরি বের করে তার ওপরও চড়াও হন। পরে উপস্থিত জনতা তাদের দুজনকে গণধোলাই দিয়ে আমাদি পুলিশ ক্যাম্পে সোপর্দ করেন।

আহত আইয়ুব আলীকে প্রথমে জায়গীর মহল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। এ ঘটনার পরদিন কয়রা থানায় হত্যা মামলা করেন লঞ্চ মাস্টার মো. আলমগীর মোল্লা। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা একই বছরের ৩০ নভেম্বর রায়হান সরদারকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন।

Read Entire Article