বিয়ে ও ডিভোর্স রেজিস্ট্রেশন কেন ডিজিটালাইজেশন নয়: হাইকোর্ট

2 weeks ago 11

বিয়ে ও বিয়ে বিচ্ছেদের (ডিভোর্স) রেজিস্ট্রেশন তথ্য ডিজিটালাইজেশনের জন্য কেন নির্দেশনা দেয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট। সংশ্লিষ্ট বিবাদীদের এ রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে। 

এ সংক্রান্ত রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানি করে মঙ্গলবার বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি মো. কামরুল হোসেন মোল্লার সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রুল জারি করেন।

আদালতে রিটের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন অ্যাডভোকেট ইশরাত হাসান।

এর আগে গত ৪ মার্চ বিয়ে ও ডিভোর্সের তথ্য ডিজিটালাইজেশনের নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে রিট দায়ের করা হয়। হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় মানবাধিকার সংগঠন এইড ফর মেন ফাউন্ডেশনের পক্ষে দায়ের করা হয় এ রিট। আবেদনে আইন মন্ত্রণালয় সচিব, তথ্য ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় সচিব এবং ধর্ম মন্ত্রণালয় সচিবকে বিবাদী করা হয়।

রিট আবেদনে বলা হয়, বিয়ে ও ডিভোর্সের রেজিস্ট্রেশনের আইনগত বিধান থাকলেও তা ডিজিটাল না করার ফলে অসংখ্য প্রতারণার ঘটনা ঘটেছে। এছাড়াও, বিয়ে গোপন রেখে ডিভোর্স না দিয়ে বিয়ে করার ঘটনা অনেক ঘটতে দেখা যাচ্ছে। এর ফলে, সন্তানের পিতৃত্ব পরিচয় নিয়েও জটিলতা দেখা যাচ্ছে। বিবাহ সংক্রান্ত অপরাধ বেড়ে অসংখ্য মামলার জন্ম নিচ্ছে। তাই, বিয়ে ও ডিভোর্স রেজিস্ট্রেশন ডিজিটাল হওয়া একান্ত আবশ্যক। যেন কোনও ব্যক্তি বিয়ে বা ডিভোর্স দিলে তা ডিজিটালাইজেশনের মাধ্যমে জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর সার্চ দিয়ে তথ্য বের করা সম্ভব হয়। এতে করে সাধারণ মানুষ প্রতারণার হাত থেকেও রক্ষা পাবে।

প্রসঙ্গত, গত ১৪ ফেব্রুয়ারি বিশ্ব ভালোবাসা দিবসে রাজধানীর উত্তরার একটি রেস্তোরাঁয় ক্রিকেটার নাসির হোসেন ও তামিমার বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়। বিয়ের খবর জানাজানির পর অভিযোগ ওঠে, নাসিরের স্ত্রী তামিমা তার প্রথম স্বামী রাকিবকে ডিভোর্স না দিয়েই পুনরায় বিয়ে করেছেন। ওই ঘটনায় উত্তরা পশ্চিম থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন তামিমার প্রথম স্বামী রাকিব হাসান। জিডিতে উল্লেখ করা হয়, তামিমার সঙ্গে রাকিবের ১১ বছরের সংসার। দুজনের আট বছরের একটি মেয়ে সন্তান আছে। কিন্তু সব ফেলে নাসিরকে বিয়ে করেন তামিমা।

পরে গত ২২ ফেব্রুয়ারি বিয়ে ও ডিভোর্স ডিজিটালাইজেশন করতে সংশ্লিষ্টদের একটি আইনি নোটিশ পাঠানো হয়। ক্রিকেটার নাসির হোসেনের সদ্য বিবাহিত স্ত্রী তামিমা সুলতানা তাম্মির প্রথম স্বামী ভুক্তভোগী রাকিব হাসান মানবাধিকার সংগঠন এইড ফর ম্যান ফাউন্ডেশনের পক্ষে এ নোটিশ পাঠায়।  সে নোটিশের জবাব না পাওয়ায় হাইকোর্টে প্রতিকার চেয়ে রিট দায়ের করা হয়।

View Source