পুরো ম্যাচ আমাদের নিয়ন্ত্রণে ছিল: লাথাম

2 months ago 37

নিউজিল্যান্ড অধিনায়ক টম ল্যাথাম

নিউজিল্যান্ড অধিনায়ক টম ল্যাথাম

নিউজিল্যান্ড অধিনায়ক টম ল্যাথাম বলেছেন, হাতে উইকেট থাকার পরও আমরা বাংলাদেশকে নির্বিঘ্নে রান করতে দেইনি।

প্রথম ওয়ানডেতে খারাপ শুরুর পর ১৩১ রানে গুটিয়ে যায় বাংলাদেশ।  তবে দ্বিতীয় ম্যাচে দলীয় ৪ রানে লিটন দাস ফিরে যাবার পর সতর্কতার সঙ্গে খেলতে থাকে টাইগাররা। পরিস্থিতির সঙ্গে মানিয়ে নিয়ে বড় ইনিংস খেলার দিকে মনোযোগ দেন তামিম। কোনরকম আগ্রাসী হবার চেষ্টা করেননি তিনি। ৮৪ বলে হাফ-সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন তামিম। শেষ পর্যন্ত ১০৮ বলে ৭৮ রান করেন এই বাঁ-হাতি ব্যাটসম্যান।

ক্রিজে এসে রান তোলায় ধীরগতির ছিলেন মুশফিকুর রহিমও। তবে ব্যাট হাতে মারমুখী ছিলেন মোহাম্মদ মিথুন। আগ্রাসী ব্যাট চালিয়ে ৫৭ বলে ৭৩ রানের অনবদ্য ইনিংস খেলেন তিনি। মিথুনের ইনিংসের উপর ভর করেই ৬ উইকেটে ২৭১ রান করে বাংলাদেশ।

বাংলাদেশের দেয়া টার্গেট ৪৮ দশমিক ২ ওভারেই স্পর্শ করে ফেলে নিউজিল্যান্ড। ম্যাচ সেরা হওয়া লাথামের অপরাজিত ১১০ রানের সুবাদে ১০ বল বাকী রেখে জয় তুলে নেয় কিউইরা।

ম্যাচ শেষে ল্যাথাম বলেন, যদিও বাংলাদেশের হাতে উইকেট ছিল, তবে আমরা তাদের নিয়ন্ত্রন করেছি। স্যান্টনার ভালো বোলিং করেছে।আমরা ভালো শুরু করতে পারেনি। কিন্তু রান তাড়া করার জন্য ইনিংসের মাঝে ভালো করেছি আমরা।

তিনি আরো বলেন, আমরা যে পরিস্থিতিতে খেলেছি তার সঙ্গে মানিয়ে নেয়া প্রয়োজন ছিলো এবং আজ আমরা করেছি। পরিস্থিতি সামলে, আমরা ভালোভাবে উতরে গেছি। কনওয়ে খুবই ভালো করেছে। সবকিছুই ভালোভাবে সম্পন্ন হয়েছে এবং সিরিজ জয় সব সময়ই আনন্দের। পাশাপাশি দল হিসেবে আরো উন্নতি করতে চাই।

ওয়ানডে ক্যারিয়ারে ল্যাথামের পঞ্চম সেঞ্চুরিতে দলের জয় নিশ্চিত হয়। দলের জয়ে অবদান রাখতে পেরে খুশী ল্যাথাম। বিশেষভাবে ৫৩ রানে ৩ উইকেট পতনের পর উইকেটে গিয়েছিলেন লাথাম।

চতুর্থ উইকেটে কনওয়ের সঙ্গে ১১৩ রান ও পরবর্তীতে জেমস নিশামের সঙ্গে জুটিতে ৭৬ রান যোগ করেন ল্যাথাম। নিশামের সঙ্গের জুটি নিউজিল্যান্ডের জয়ের পথ সহজ করে।

তিনি বলেন, দলের জয়ে অবদান রেখে ভালো লাগছে। আমরা জানতাম বাংলাদেশ বল নিয়ে লড়াই করবে। আমাদের বড় জুটি গড়ার প্রয়োজন ছিলো। কনওয়ে ও নিশামের সঙ্গে সম্ভব হয়েছিলো

Read Entire Article