পানি উন্নয়ন বোর্ডের জায়গা উদ্ধারে পদক্ষেপ নেই কর্তৃপক্ষের

2 months ago 48

রাণীনগর উপজেলার আতাইকুলা পাগলীর মোড়ে পানি উন্নয়ন বোর্ডের জায়গা দখল করে বহুতল ভবন নির্মাণ

রাণীনগর উপজেলার আতাইকুলা পাগলীর মোড়ে পানি উন্নয়ন বোর্ডের জায়গা দখল করে বহুতল ভবন নির্মাণ

নওগাঁর রাণীনগর উপজেলার আতাইকুলা পাগলীর মোড়ে সরকারি এ্যকোয়ারকৃত পানি উন্নয়ন বোর্ডের জায়গা দখল করে ইটের বহুতল ভবন নির্মাণের অভিযোগ উঠেছে এক প্রবাসী ও তার বোনের বিরুদ্ধে। 

এ ঘটনায় বিভিন্ন পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশের পরেও টনক নড়েনি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের। বর্তমানে ভবন নির্মাণের কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন দখলকারী ওই প্রবাসী ও বোন। এদিকে দখল হয়ে যাওয়া পানি উন্নয়ন বোর্ডের জায়গা উদ্ধারে কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

আতাইকুলা গ্রামের প্রবাসী মালেক ও তার বোন ফুরতুন বেগম আতাইকুল পাগলীর মোড়ে পানি উন্নয়ন বোর্ডের এ্যকোয়ারকৃত সরকারি জায়গা দখল করে নির্মাণ করছেন বহুতল ভবন। এছাড়া ওই এলাকায় পানি উন্নয়ন বোর্ডের জায়গা অবৈধ ভাবে দখল করে গড়ে তোলা হয়েছে বিভিন্ন দোকানপাটসহ বহুতল ভবন। 

স্থানীয়দের অভিযোগ, পানি উন্নয়ন বোর্ডের উদাসীনতায় এভাবেই দিন দিন ওই এলাকার সরকারি এ্যকোয়ারকৃত জায়গা গুলো দখল হয়ে যাচ্ছে। যেন দেখার কেউ নেই। 

জানা গেছে, নওগাঁ ছোট যমুনা নদীর বাঁধের রাণীনগর উপজেলার মিরাট ইউপির আতাইকুলা পাগলীর মোড় এলাকায় সরকারি এ্যকোয়ারকৃত পানি উন্নয়ন বোর্ডের বেশ কিছু জায়গা-জমি রয়েছে। বেতগাড়ী ব্রিজের পাশে পাগলীর মোড়ে পানি উন্নয়ন বোর্ডের সরকারি প্রায় ৩ শতক জায়গা দখল করে আতাইকুলা গ্রামের সৌদি প্রবাসী মালেক এবং তার বোন ফুরতুন বেগম গত কয়েক মাস আগে থেকে সেখানে গড়ে তুলছেন বহুতল ভবন। বর্তমানে ভবনের নির্মাণের কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন তারা। 

স্থানীয়রা বলছেন, শুধু প্রবাসী মালেক এবং তার বোনই নয় ওই এলাকায় পানি উন্নয়ন বোর্ডের এ্যকোয়ারকৃত সরকারি জায়গা অবৈধভাবে দখল করে অনেকেই গড়ে তুলেছেন বিভিন্ন দোকানপাটসহ ভবন। 

স্থানীয়দের অভিযোগ, পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তাদের উদাসীনতা কিছু অসাধু কর্মচারীদের যোগসাজসে দিন দিন স্থানীয় প্রভাবশালীরা পানি উন্নয়ন বোর্ডের জায়গা অবৈধভাবে দখল করে এভাবেই গড়ে তুলছেন ভবন ও দোকানপাট।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয়রা অনেকেই জানান, যাদের জায়গা-জমি পানি উন্নয়ন বোর্ড সরকারিভাবে এ্যকোয়ার করে নিয়েছে। তারাসহ স্থানীয় প্রভাবশালীরা এখন অবৈধ ভাবে ওই সরকারি এ্যকোয়ারকৃত পানি উন্নয়ন বোর্ডের জায়গা-জমি দখল করে ভবন ও দোকানপাট নির্মাণ করে যাচ্ছে। রহস্যজনক কারণে নওগাঁ পানি উন্নয়ন বোর্ডের লোকজন এগুলো দেখেও দেখেন না। দ্রুত এসব অবৈধ দখলদারদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করে সরকারি জায়গা দখল মুক্ত করা প্রযোজন বলে মনে করছেন তারা। এবিষয়ে দ্রুত ঊদ্ধর্তন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন স্থানীয়রা। 

সরকারি জায়গা দখল করে ভবন নির্মাণের বিষয়ে জানতে চাইলে দখলদার প্রবাসী মালেকের বোন ফুরতুন বেগম বলেন, সরকার আমাদের অনেক জায়গা-জমি এ্যকোয়ার করে নিয়েছে। আমার ভাইয়ের বাড়ি করার মত জায়গা না থাকায় আমরা পানি উন্নয়ন বোর্ড থেকে লিজ নিয়ে এবং আমাদের কিছু জায়গাসহ সেখানে আমরা ভবন নির্মাণ করছি। তবে লিজ নেয়ার বিষয়ে কোনো কাগজপত্র দেখাননি তিনি।  

এ ব্যাপারে নওগাঁ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী আরিফুজ্জামান খাঁন বলেন, বিষয়টি জানার পর অফিস থেকে সেখানে লোক পাঠানো হয়েছিলো। ভবন নির্মাণ কাজ বন্ধ করতে বলা হয়েছে। পানি উন্নয়ন বোর্ডের জায়গা উদ্ধারসহ ওই ভবন উচ্ছেদের প্রক্রিয়া চলছে। এছাড়া অবৈধ স্থাপনার তালিকা করা হয়েছে। আইনী প্রক্রিয়া অনুযায়ী উচ্ছেদ করা হবে বলেও জানিয়েছেন এই কর্মকর্তা। 

Read Entire Article