‘পরাধীনতার শৃঙ্খল ভেঙে স্বাধীনতা অর্জনের পথ দেখিয়েছেন বঙ্গবন্ধু’

1 month ago 11

শুক্রবার সকাল ১০টায় স্বাধীনতা স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পস্তবক অর্পণ, বঙ্গবন্ধু চত্বরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পণ করেন ভিসি অধ্যাপক ড. শিরীণ আখতার। 

শুক্রবার সকাল ১০টায় স্বাধীনতা স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পস্তবক অর্পণ, বঙ্গবন্ধু চত্বরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পণ করেন ভিসি অধ্যাপক ড. শিরীণ আখতার। 

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) উৎসবমুখর পরিবেশে বিভিন্ন কর্মসূচি উদযাপিত হয়েছে। 

শুক্রবার (২৬ মার্চ) সকাল ১০টায় স্বাধীনতা স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পস্তবক অর্পণ, বঙ্গবন্ধু চত্বরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পণ করেন ভিসি অধ্যাপক ড. শিরীণ আখতার। 

বেলা ১১টায় ভিসির দফতরের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হয় ‘স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী: বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ’ শীর্ষক আলোচনা সভা। ভিসি ড. শিরীণ আখতারের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন সমাজবিজ্ঞানী প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি ড. অনুপম সেন। 

অধ্যাপক ড. শিরীণ আখতার বলেন, মহান স্বাধীনতা বাঙালি জাতির শ্রেষ্ঠ অর্জন। এ অর্জনে বাঙালিদের ঐক্যবদ্ধ করে সশস্ত্র সংগ্রামে ঝাঁপিয়ে পড়তে যিনি অনুপ্রাণিত করেছেন তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। তিনি দেখিয়েছেন তা শুধু বাঙালি জাতির জন্য নয়; গোটা বিশ্বের নিপীড়িত-নির্যাতিত মুক্তিকামী মানুষের মুক্তির পথ প্রদর্শক হিসেবে চির ভাস্বর হয়ে থাকবে। 

প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি ড. অনুপম সেন বলেন, আজকের দিনটি বাঙালি জাতির জন্য অত্যন্ত আনন্দের ও পরম গৌরবের দিন। বঙ্গবন্ধু তনয়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার যোগ্য নেতৃত্বে বাংলাদেশ বর্তমানে খাদ্য, শিক্ষা, চিকিৎসা, শিল্প-বাণিজ্যসহ সকল ক্ষেত্রে বিশ্ববাসীর কাছে উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে স্বীকৃত। দেশের এ উন্নয়নের ধারা অব্যাহত থাকলে শিঘ্রই বাংলাদেশ উন্নত বিশ্বের কাতারে শামিল হবে। 

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার অধ্যাপক এস এম মনিরুল হাসানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন অনুষ্ঠান উদযাপন কমিটির সদস্য-সচিব চবি প্রক্টর ড. রবিউল হাসান ভূঁইয়া। 

এ ছাড়াও কর্মসূচির অংশ হিসেবে ২৬ মার্চ রাত ১২:০১ মিনিট (২৫ মার্চ দিবাগত রাত) বিশ্ববিদ্যালয় স্বাধীনতা স্মৃতি স্তম্ভ বিএনসিসি কর্তক বিউগল বাজিয়ে মহান স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীকে স্বাগত জানানো হয়। প্রত্যুষে বিশ্ববিদ্যালয় ভবনসমূহ জাতীয় পতাকা উত্তালন করা হয়। ২৬ মার্চ ফজরের নামাজের পর বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ ও ক্যাম্পাসের সব মসজিদে বিশেষ মোনাজাত এবং কেন্দ্রীয় মন্দির ও প্যাগোডাসহ অন্যান্য ধর্মীয় উপাসনালয়ে বিশেষ প্রার্থনা করা হয়।  প্রশাসনিক ভবন, হলসমূহ, চবি ১নং ও ২নং গেইট চত্বরসহ অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ ভবনসমূহে দৃষ্টিনন্দন আলোকসজ্জায় সজ্জিত করা হয়। চবি স্বাধীনতা স্মতি স্তম্ভ চত্বর, চবি  ১নং গেইট ‘স্মরণ’ চত্বর এবং ২নং গেইট চত্বরে দিনব্যাপী জাতির পিতার ভাষণ এবং দেশাত্মবোধক গান পরিবেশন করা হয়। 

অনুষ্ঠানে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট ও সিন্ডিকেট সদস্যবৃন্দ বিভিন অনুষদের ডিনবৃন্দ, শিক্ষক সমিতির নেতৃবৃন্দ, কলেজ পরিদর্শক, প্রভোস্টবৃন্দ, বিভাগীয় সভাপতি, ইনস্টিটিউট ও গবেষণা কেন্দ্রে পরিচালকবৃন্দ, সহকারী প্রক্টরবৃন্দ, শিক্ষকবৃন্দ, অনুষ্ঠান আয়োজন কমিটির সদস্যবৃন্দ, অফিস প্রধানবৃন্দ, অফিসার সমিতি, কর্মচারি সমিতি, কর্মচারী ইউনিয়নর নেতৃবৃন্দ, বঙ্গবন্ধু পরিষদের নেতৃবৃন্দ, কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ, সাংবাদিক সমিতির নেতৃবৃন্দসহ সুধিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

Read Entire Article