‘পরবর্তী প্রজন্ম শহিদদের মর্যাদা যেন রাখতে পারে’

1 month ago 11

দেশজুড়ে পালিত হচ্ছে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী। ১৯৭১ সালের এই দিনে বিশ্ব মানচিত্রে নতুন রাষ্ট্র হিসেবে বাংলাদেশের আত্মপ্রকাশের ঘোষণা দিয়েছিলেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। গৌরবের এই মাহেন্দ্রক্ষণে রাইজিংবিডির সঙ্গে কথা বলেছেন বরেণ্য অভিনেত্রী দিলারা জামান।

মহান মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে প্রবীণ এই অভিনেত্রী বলেন, ‘লক্ষ শহীদের রক্তের বিনিময়ে আমাদের এই দেশ স্বাধীন হয়েছে। আমরা পেয়েছি একটি পতাকা। সেই শহিদদের প্রতি আমরা কৃতজ্ঞ। আমরা এবং আমাদের পরবর্তী প্রজন্ম তাদের সেই মর্যাদা যেন রাখতে পারি।’

ষাটের দশকে অভিনয় ক্যা রিয়ার শুরু করেন দিলারা জামান। অর্ধ শতকেরও বেশি সময় তিনি অভিনয়ের সঙ্গে যুক্ত। পূর্ব পাকিস্তান ও স্বাধীন বাংলাদেশের নাটক, চলচ্চিত্রের অনেক বাঁকবদল দেখেছেন নিজ চোখে। স্বাধীনতার ৫০ বছর পর বাংলাদেশের নাটক, চলচ্চিত্রে কতটা পরিবর্তন এসেছে?

এ প্রশ্নের উত্তরে দিলারা জামান বলেন, ‘নাটক, চলচ্চিত্র স্বাধীনতার সময়ে একরকম ছিল, এখন অন্য রকম। এটাই স্বাভাবিক। কারণ সময় বদলে গেছে। উদ্ভাবিত হয়েছে নতুন নতুন অনেক প্রযুক্তি। যে কারণে ওই সময়ের কাজের সঙ্গে বর্তমান সময়ের কাজের তুলনা করলে হবে না। ৫০ বছর আগে মানুষের যে চাহিদা ছিল, তার উপর নির্ভর করে নির্মিত হয়েছে নাটক। এখন মানুষের চাহিদা, রুচি অন্যএরকম। তাই এসব বিষয় মাথায় রেখে কাজ করতে হবে।’

শুধু স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী নয়, উদযাপিত হচ্ছে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী। বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে নির্মিত হচ্ছে বায়োপিক। এই চলচ্চিত্রে বঙ্গবন্ধুর মায়ের চরিত্রে অভিনয় করছেন দিলারা জামান। কাজটি করতে পেরে উচ্ছ্বসিত তিনি। ‘ইতিহাসের অংশ হতে পেরে আমি খুবই আনন্দিত, সম্মানিত বোধ করছি।’- বলেন দিলারা জামান।  

Read Entire Article