নরম ও মোলায়েম চালের আটার রুটি তৈরির রেসিপি 

1 month ago 24

আজ বাদে কাল শবে বরাত। আর এই শবে বরাতে ইবাদাতের পাশাপাশি হালুয়া-রুটি থাকা চাই। তবে শবে বরাতের দিনে এই হালুয়া-রুটির ধর্মীয় কোনো তৎপর্য নেই। এটি নেহায়েত সামাজিক রেওয়াজ। ওই দিন বিকেল থেকেই শুরু হয় প্রতিবেশীদের বাড়িতে বাড়িতে হরেক রকম হালুয়া-রুটি বিতরণের পর্ব। 


সবাই মিলে মিশে খুশিতে রুটি বানানো হয় সেদিন! তবে মাঝে মাঝে রুটি বানাতে ঝামেলাও হতে দেখা যায়। আর সেই ঝামেলাটি হলো- রুটি ঠিক মতো কাই না হওয়া। ঠিক মতো যদি রুটি কাই না করা হয়, তবে চালের রুটি ভালো হয় না। রুটি  শক্ত হয়ে যায়। তাই আজ আপনাদের জন্য থাকছে চালের আটার রুটি কীভাবে নরম ও মোলায়েম করা যায়। যাতে রুটি ভাজার পরও অনেকক্ষণ নরম ও মোলায়েন থাকে। চলুন তবে জেনে নেয়া যাক নরম ও মোলায়েম চালের আটার রুটি তৈরির রেসিপিটি-   

উপকরণ: চালের গুঁড়া ১.৫ কাপ, লবণ পরিমাণ মতো, পানি পরিমাণ মতো।

প্রণালী: প্রথমে একটি হাড়ি চুলায় দিয়ে তাতে পৌনে ২ কাপ পানি নিয়ে গরম করে নিন। পানি ফুটে আসলে এতে সামান্য লবণ দিয়ে দিন। এবার এতে ১.৫ কাপ চালের গুঁড়া দিয়ে দিন ও ৫ মিনিট মৃদু আঁচে জ্বাল দিয়ে ঢেকে রাখুন। ঢেকে রাখলে চালের গুঁড়া ভালোমতো সিদ্ধ হয়ে যাবে। ৫ মিনিট ঢেকে রাখার পর চুলা থেকে নামিয়ে তারপর কাঠের খুনতি বা কাঠি দিয়ে ভালোমতো নাড়ুন। যদি দরকার হয়, তবে সামান্য পানি মিশিয়ে নিতে পারেন। 

এই অবস্থায় ১০ মিনিট রেখে দিন হালকা ঠাণ্ডা হওয়ার জন্য। খুব বেশি দেরি করা যাবে না। কারণ, গরম গরমই ভালোমতো মথে কাই করতে হবে। যত ভালোভাবে কাই হবে তত ভালো রুটি হবে।এবার রুটি বানানোর জন্য লম্বা করে রোলের মতন খামির করে ছোট ছোট টুকরা করে নিন। এই চালের আটার টুকরাগুলো গোল বল বানিয়ে বেলে নিন। সবগুলো বেলা হয়ে গেলে ভেজে কাপড় দিয়ে ঢেকে রাখুন।  

ব্যস! হয়ে গেল আপনার পারফেক্ট চালের রুটি তৈরি! গরম গরম পরিবেশন করুন শবে বরাতের হালুয়া কিংবা ঝাল গরুর মাংস বা মুরগির মাংসের সঙ্গে!

Read Entire Article