ঢামেক হাসপাতালে শিশুর মৃত্যু, মাকে পেটালো আনসার সদস্যরা!

2 weeks ago 12

ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের জরুরি বিভাগ

ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের জরুরি বিভাগ

ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে আনসার সদস্যদের বিরুদ্ধে মৃত শিশু আমির হামজার মা লিপি আক্তারকে পেটানোর অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় হাসপাতালের জরুরি বিভাগে চিকিৎসা নিচ্ছেন আহত মা লিপি।

মঙ্গলবার রাতে ঢামেকের জরুরি বিভাগের ভেতরে এ ঘটনা ঘটেছে।

মৃত শিশুর বাবা মো. লিটন মিয়া জানান, তাদের বাসা তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল কুনিপাড়া এলাকায়। গত ১৯ মার্চ সকালের দিকে পূর্ব নাখালপাড়া এলাকায় একটি কারখানার টিনের ছাদে তার একমাত্র ছেলে আমিরহামজা ঘুড়ি ধরতে যায়। সেখানে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে নিচে পড়ে যায়। এতে তার মাথায় আঘাতপ্রাপ্ত হয়। সেই দিনই তাকে ঢামেক হাসপাতালের ২০৪ নম্বর ওয়ার্ডে তার ৯ বছরের বাচ্চা আমির হামজা ভর্তি করা হয়।

তিনি আরো বলেন, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় আমির হামজাকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা। কিন্তু ছেলের মৃত্যুর বিষয়টি বিশ্বাস হয়নি তার। এ সময় আমির হামজাকে চিকিৎসার জন্য অন্যত্র নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন তিনি। জরুরি বিভাগের গেট দিয়ে বের হতেই আনসার সদস্যরা মৃত ঘোষিত শিশুকে নিয়ে যেতে বাধা দেন। একই সঙ্গে চার দিকের গেট আটকে দেন। এ সময় তাদের সঙ্গে আমার কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে কয়েকজন আনসার সদস্য লিপি আক্তাকে মারধর করেন। এজন্য আনসার সদস্যদের কাছে থাকা অস্ত্র ব্যবহার করা হয়। এমন পরিস্থিতিতে স্ত্রীকে ছাড়াতে গিয়ে আনসারদের মারধরের শিকার হন লিটন মিয়াও।

আহত লিপি আক্তার জানান, ছেলেকে নিয়ে যাওয়ার জন্য আনসার সদস্যদের বাধা দেয়ার বিষয়টি সন্দেহজনক মনে হয়েছে তার। এজন্য বাধা দেয়ার কারণ জিজ্ঞেস করেন তিনি। এর ফলে তাকে মারধর করা হয়েছে। তাকে বাঁচাতে গিয়ে তার স্বামীও মারধরের শিকার হয়েছেন। তিনি ন্যাক্কারজনক ঘটনার বিচার চান।

জরুরি বিভাগে থাকা কয়েকজন রোগীর স্বজনরা জানান, আনসার সদস্যরা একজন নারীর গায়ে হাত তুলেছেন। এটা কখনোই মেনে নেয়া যায় না। কারো সন্তান মারা গেলে তার মধ্যে কষ্ট থাকে। কষ্টের জন্য তিনি যেকোনো কিছু বলতে পারেন। তাই বলে গায়ে হাত দেয়া কোনোভাবেই কাম্য নয়।

ঢামেক হাসপাতালের আনসার কমান্ডার (পিসি) মো. মিজানুর রহমান জানান, জরুরি বিভাগের মৃত শিশুর স্বজনদের সঙ্গে অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটেছে। আনসার সদস্যদের বিরুদ্ধে নারীকে মারধর করার প্রমাণ মিললে অবশ্যই তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ঢামেক পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল নাজমুল হক জানান, শুধু আনসার সদস্য কেন? অন্য কেউ-ই কোনো নারীর গায়ে হাত দিতে পারেন না। এ রকম ঘটনা ঘটে থাকলে অবশ্যই ব্যবস্থা নেয়া হবে। এরই মধ্যে বিষয়টি নিয়ে পুলিশকে ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে।

View Source