করোনায় ব্রাজিলে সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড

2 months ago 45

দক্ষিণ আমেরিকার দেশ ব্রাজিলে তাণ্ডবলীলা চালাচ্ছে মহামারি করোনাভাইরাস। প্রতিদিনই এতে নতুন করে আক্রান্ত ও মৃত্যু হচ্ছে হাজারো মানুষের। এরই ধারাবাহিকতায় এবার ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড গড়েছে দেশটি।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও প্রাণহানির পরিসংখ্যান রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডওমিটারের তথ্যানুযায়ী, ব্রাজিলে মঙ্গলবার (২৩ মার্চ) করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন তিন হাজার ১৫৮ জন। আর নতুন করে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে ৮৪ হাজার ৯৯৬ জনের শরীরে।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও মৃত্যুর দিক থেকে দ্বিতীয় স্থানে অবস্থান করছে ব্রাজিল। এখন পর্যন্ত এ ভাইরাসটিতে সংক্রমিত হয়েছেন ১ কোটি ২১ লাখ ৩৬ হাজার ৬১৫ জন এবং মারা গেছেন ২ লাখ ৯৮ হাজার ৮৪৩ জন। এ ছাড়া সুস্থ হয়েছেন এক কোটি ছয় লাখ এক হাজার ১৫৮ জন।

এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ১০ হাজার ২০৬ জন। এবং করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৪ লাখ ৮৫ হাজার ৭৮৬ জন। এখন পর্যন্ত এ ভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছেন ১২ কোটি ৪৭ লাখ ৯০ হাজার ৫১ জন এবং মারা গেছে ২৭ লাখ ৪৫ হাজার ৩৮৬ জন। এ ছাড়া সুস্থ হয়েছেন ১০ কোটি ৮ লাখ ২০ হাজার ৯৭১ জন।

করোনায় এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ও মৃত্যু হয়েছে বিশ্বের ক্ষমতাধর দেশ যুক্তরাষ্ট্রে। তালিকায় শীর্ষে থাকা দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনা সংক্রমিত হয়েছেন ৩ কোটি ৬ লাখ ৩৬ হাজার ৫৩৪ জন। মৃত্যু হয়েছে ৫ লাখ ৫৬ হাজার ৮৮৩ জনের।

আক্রান্তে তৃতীয় এবং মৃত্যুতে চতুর্থ অবস্থানে থাকা ভারতে এখন পর্যন্ত করোনায় ১ কোটি ১৭ লাখ ৩৩ হাজার ৫৯৪ জন সংক্রমিত হয়েছেন। মৃত্যু হয়েছে ১ লাখ ৬০ হাজার ৪৭৭ জনের।

আক্রান্তের দিক থেকে চতুর্থ স্থানে রয়েছে রাশিয়া। দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৪৪ লাখ ৭৪ হাজার ৬১০ জন। ভাইরাসটিতে মারা গেছেন ৯৫ হাজার ৮১৮ জন।

আক্রান্ত ও মৃত্যুর হিসাবে ফ্রান্স রয়েছে পঞ্চম স্থানে। দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন ৪৩ লাখ ১৩ হাজার ৭৩ জন। এর মধ্যে মারা গেছেন ৯২ হাজার ৯০৮ জন।

এদিকে আক্রান্তের তালিকায় যুক্তরাজ্য ষষ্ঠ, ইতালি সপ্তম, স্পেন অষ্টম, তুরস্ক নবম এবং জার্মানি দশম স্থানে আছে। এ ছাড়া বাংলাদেশের অবস্থান ৩৪তম।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরের শেষ দিকে চীনের হুবেই প্রদেশের উহান থেকে করোনাভাইরাস সংক্রমণ শুরু হয়। এখন পর্যন্ত বাংলাদেশসহ বিশ্বের ২১৮টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে কোভিড-১৯।

Read Entire Article