ইউপি ভোট: খুলনায় বাড়ছে নির্বাচনী সহিংসতা

1 month ago 25

আগামী ১১ এপ্রিলের ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে খুলনা জেলার ২৩টি ইউনিয়নে ভোটগ্রহণ হবে।  নির্বাচনের দিন যতই ঘনিয়ে আসছে ভোটের উত্তাপও ততই বাড়ছে। বৃদ্ধি পাচ্ছে তৃণমূলে সহিংসতার ঘটনা। 

ইতোমধ্যেই খুলনার পাইকগাছা ও দিঘলিয়া উপজেলায় বেশ কয়েকটি ইউনিয়নে সহিংস ঘটনার অভিযোগ উঠেছে। সরেজমিনে বিভিন্ন নির্বাচনী এলাকা পরিদর্শনে এসব তথ্য জানা গেছে।

সোলাদানা ইউনিয়ন:

পাইকগাছা উপজেলার এই ইউনিয়নে পোস্টার লাগানোকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে গুরুতর জখম হয়েছেন ইউপি চেয়ারম্যান এসএম এনামুল হকসহ তার অন্তত ২৫জন কর্মী।  শনিবার (২৭ মার্চ) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে পাইকগাছার বেতবুনিয়া গ্রামে এঘটনা ঘটে।

অভিযোগ, ওইদিন বর্তমান চেয়ারম্যান ও স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী এসএম এনামুল হকের পোস্টার লাগাতে গেলে নৌকা প্রতীকের কর্মী-সমর্থকরা তাতে বাধা দেয় ও পোস্টার ছিঁড়ে ফেলে। বিষয়টি চেয়ারম্যানকে জানালে তিনি তার কয়েকজন কর্মী নিয়ে ঘটনাস্থলে যান। প্রতিপক্ষ প্রার্থীর কর্মীরা তাদেরকে ধাওয়া করলে বেতবুনিয়া গ্রামের লাভলু গাজী ও তার বোন মনিরার বাড়িতে সঙ্গীদের নিয়ে আশ্রয় নেন চেয়ারম্যান। এসময় ওই বাড়িতেই তাদেরকে কুপিয়ে জখম করা হয়।  বাড়ি-ঘর ভাঙচুর করা হয়। 

পাইকগাছা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ এজাজ শফী জানান, ১০ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা হয়েছে। এখন পরিস্থিতি স্বাভাবিক। স্থানীয় ৪ জনকে আটক করা হয়েছে।

এদিকে এ ঘটনায় চেয়ারম্যান এনামুল হকসহ ৩ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন কর্তব্যরত চিকিৎসক। 

এ ইউনিয়নের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আব্দুল মান্নান গাজী জানান, চেয়ারম্যান মুখ খারাপ করায় স্থানীয় লোকেরা তাকে চারদিক থেকে ঘিরে ফেলে মারধর করে।

চাঁদখালী ইউনিয়ন :

পাইকগাছা উপজেলার এই ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে লড়ছেন ৬ জন প্রার্থী। এরা হলেন- আওয়ামী লীগ  মনোনীত প্রার্থী মো. মুনছুর আলী গাজী (নৌকা), স্বতন্ত্রের ব্যানারে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী শাহজাদা মো. আবু ইলিয়াস (চশমা), স্বতন্ত্র মনিরুল ইসলাম মনি মোল্যা (ঘোড়া), মোস্তা গাউছল হক (মোটর সাইকেল), ইসলামী আন্দোলনের মাওলানা মো. শফিকুল ইসলাম (পাখা) ও স্বতন্ত্র শেখ আহসান উল্লাহ (আনারস)।

দলীয় মনোনয়ন না পেয়েও শাহজাদা মো. আবু ইলিয়াস (চশমা) স্বতন্ত্র প্রার্থী হওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মো. মুনছুর আলী গাজী। তিনি অভিযোগ করেন, আবু ইলিয়াস আমেরিকায় থেকে পয়সা কড়ি কামাই করে এনে মানুষকে টাকা বিলাচ্ছেন ও আইডি কার্ড দিচ্ছেন। 

তবে অভিযোগ অস্বীকার করে স্বতন্ত্র প্রার্থী শাহজাদা মো. আবু ইলিয়াস (চশমা) পাল্টা অভিযোগ করে বলেন, তিনি মুনছুর আলী গাজীর লাঠিয়াল বাহিনীর হুমকির মুখে রয়েছেন। তিনি নির্বাচনে এজেন্ট দিতে পারবেন কি-না তা নিয়েও সংশয়ে রয়েছেন। 

এ ই্উনিয়নের চেয়ারম্যান পদের অপর স্বতন্ত্র প্রার্থী মনিরুল ইসলাম মনি মোল্যা বলেন, আওয়ামী লীগ মনোনীত ও বিদ্রোহী দু’ প্রার্থীর পাল্টাপাল্টিতে তিনি শঙ্কিত। 

দিঘলিয়া উপজেলা :

দিঘলিয়া উপজেলার বারাকপুর ও সেনহাটি এ দু'টি ইউনিয়নে নির্বাচনী সহিংসতার অভিযোগ উঠেছে।  গত শুক্রবার (২৬ মার্চ) ও শনিবার আলাদাভাবে হামলা ও ভাংচুরের ঘটনা ঘটে। হামলায় আহত হয়েছে কমপক্ষে ১৫ জন। হামলার ঘটনায় পুলিশ ৯জনকে আটক করেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, দিঘলিয়া উপজেলার বারাকপুর ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী গাজী জাকির হোসেনের কর্মী-সমর্থকরা শুক্রবার (২৬ মার্চ) বিকেলে স্থানীয় নন্দন প্রতাপ গ্রামে উঠান বৈঠকে যাওয়ার সময় বিদ্রোহী প্রার্থী আনসার শেখের লোকজন হামলা চালায়। এতে কমপক্ষে ১৫জন আহত হয়। এছাড়া ৪টি মোটরসাইকেল ভাংচুর করা হয়। 

অপরদিকে, উপজেলার সেনহাটি ইউনিয়নের শিববাড়ী সংলগ্ন এলাকায় স্বতন্ত্র প্রার্থী জিয়া গাজীর (আনারস) উঠান বৈঠকের প্রায় ৪শ’ চেয়ার-টেবিল পুকুরে ফেলে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে নৌকার কর্মী-সমর্থকদের বিরুদ্ধে। এছাড়া শনিবার (২৭ মার্চ) রাত সাড়ে ৯টার দিকে হাজীগ্রামে জিয়া গাজীর নির্বাচনী অফিসও ভাংচুর করা হয়েছে বলে সূত্র জানিয়েছে।

দিঘলিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আহসান উল্লাহ বলেন, নন্দন প্রতাপ এলাকায় হামলার ঘটনায় আটককৃতদের আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। 

Read Entire Article